চকবাজার বর্তমানে সারা বাংলাদেশের পাইকারি বিক্রেতাদের নির্ভরযোগ্য স্থান। সারা বাংলাদেশের ছোট বড় সব ধরনের পাইকাররা ঢাকা চকবাজার থেকে বিভিন্ন ধরনের পণ্য সংগ্রহ করে থাকেন। চকবাজার পুরান ঢাকার লালবাগে অবস্থিত একটি জনপ্রিয় বাজার। ঢাকা চকবাজার হচ্ছে একটি থানার নাম যা ঢাকার দক্ষিণ সিটির মধ্যে অবস্থিত। বাংলাদেশের বিভিন্ন ধরনের বড় বড় পাইকারি মার্কেট এর চেয়ে সব থেকে বড় মার্কেট হলো ঢাকা চকবাজার পাইকারি মার্কেট। যার কারণে সারা বাংলাদেশের পাইকাররা ঢাকা চকবাজার থেকে বিভিন্ন ধরনের মালা-মাল বা পণ্য ক্রয় করে থাকেন।
বাংলাদেশের মধ্যে এমন কোন পণ্য নাই যে যা ঢাকা চকবাজারে পাওয়া যায় না। বর্তমানে দেখা যায় যে বিভিন্ন ধরনের কোম্পানির পণ্য গুলো ঢাকা চকবাজারের মাধ্যমে সারা বাংলাদেশে ছরিয়ে পরে। আমাদের দেশের সকল ধরনের ছোট বড় পাইকাররা ঢাকা চকবাজার থেকে পণ্য ক্রয় করে তাদের আশে পাশের ছোট ছোট বাজার গুলোতে পাইকারি মালা-মাল বিক্রয় করে অনেক টাকা লাভবান হচ্ছে।

ঢাকা চকবাজার সরকারি বিধি নিষেধ অনুযায়ি প্রতি শুক্রবার সপ্তাহে একদিন বন্ধ থাকে। সরকারি নিষেধ অনুযায়ি ঐ দিন কেউ দোকান পাট খোলা রাখতে পারবে না। শনিবার সকাল থেকে ঢাকা চকবাজারের সকল দোকানপাট বৃহঃবার মধ্য রাত পর্যন্ত খোলা থাকে। আবার সরকারি বিধি নিষেধ অনুযায়ি বিভিন্ন দিবসে ঢাকা চকবাজারের পাইকারি মার্কেট বন্ধ থাকে।

ঢাকা চকবাজার কে আবার বিভিন্ন বাজার নামে পরিনত করেছেন যেমনঃ-

১. বেগম বাজার পাইকারি মার্কেট

২. মৌলভীবাজার পাইকারি মার্কেট

৩. ইমামগঞ্জ পাইকারি মার্কেট

৪. ছোট কাটার পাইকারি মার্কেট

৫. চকসারকেউলার

বেগমবাজার পাইকারি মার্কেট

বেগমবাজার পাইকারি মার্কেট অনেক বড় একটি মার্কেট যা চকবাজারে অবস্থিত। বেগম বাজার হলো ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সাথে। এখানে সকল প্রকার পাইকারি মালা-মাল পাওয়া যায় যেমন, ব্রাশের বিভিন্ন আইটেম, মুদি মনিহারি পণ্য, বাচ্চাদের খেলনা, বিভিন্ন ধরনের দেশি বিদেশী সিগারেট ইত্যাদি সকল ধরনের পণ্য পাইকারি বিক্রয় করে থাকান।

মৌলভীবাজার টাওয়ার

মৌলভীবাজার পাইকারি মার্কেটে কেমিক্যালের জগতে সব থেকে বড় মার্কেট হলো মৌলভীবাজার যা ঢাকা চকবাজার অবস্থিত। এখানে বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল পাইকারি বিক্রয় করে থাকেন। আর সব থেকে বড় কথা হলো বাংলাদেশের মসলার বাজারের মধ্যে সব থেকে বড় মসলা বাজার হলো মৌলভীবাজার। তাছারা এখানে মুদি ও মনিহারী সামগ্রী পাইকারি পাওয়া যায়

ইমামগঞ্জ পাইকারি মার্কেট

ইমামগঞ্জ পাইকারি মার্কেট হলো লোহা লংকার জগতে সব থেকে বড় মার্কেট। এখনে বিভিন্ন ধরনের ইলেক্ট্রনিক্স,বিভিন্ন ধরনের মেশীনারিজের যন্ত্রপাতি, হাটওয়্যারের মালা-মাল ইত্যাদি পাইকারি বিক্রয় করা হয়। এই ইমামগঞ্জ পাইকারি মার্কেট ঢাকা চকবাজারে অবস্থিত।

ছোটকাটার পাইকারি মার্কেট

সিলভারের জগতে সব থেকে বড় মার্কেট হলো ইমামগঞ্জ পাইকারি মার্কেট যা ঢাকা চকবাজেরে অবস্থিত। এখানে সিলভার,পাটাপতা,টাং ইত্যাদি পাইকারি বিক্রয় করা হয়।

চকর্সারকিউলার

বাংলাদেশে যত প্রকার কসমেট্রিক্স আছে সব কিছুই চকর্সাকিউলারে পাওয়া যায়। এখান থেকে সারা বাংলাদেশের পাইকাররা কসমেট্রিক্স ক্রয় করে থাকেন। এখানে দামী-কমদামী দেশি বিদেশী কসমেট্রিক্স পাইকারি দামে পাওয়া যায়।

কি ভাবে ঢাকা চকবাজারে যাব

বিভিন্ন দূর দূরান্ত থেকে আগত পাইকাররা আসার জন্য ঢাকা মহাসরক থেকে যাত্রাবাড়ি, সায়দাবাদ বা গুলিস্তান থেকে সুজা নাজীমউদ্দীন রোডে যাইতে হবে। তারপর বামে মোর দিয়ে সুজা জাইতে হবে। আপনি যদি পা দিয়ে হেটে যান তাহলে আপনার ২০ মিনিট সময় লাগবে। আর যদি রিকশা বা লেগুনা দিয়ে যান তাহলে ১০ মিনিট সময় লাগবে এবং রিকশা ভাড়া নিবে ৫০ টাকা আর লেগুনা নিবে ২০ টাকা। কারণ ঢাকা চকবাজারে যদিও বাস চলাচল করে না

ট্রাসপোর্ট

বর্তমানে ঢাকা চকবাজার থেকে সারা বাংলাদেশে ট্রাসপোর্ট এর মাধ্যে পণ্য   পৌছিয়ে দিয়ে থাকেন। এতে দেখা যায় যে আমাদের দেশের পাইকাররা অনেক সুবিধা ভোগ করে থাকেন। বিকাশ বা ব্যাংক এর মাধ্যমে টাকা পাটিয়ে দিলে তারা অতি সহজে ট্রাসপোর্ট এর মাধ্যমে আপনার মালা-মাল পৌছিয়ে দিয়ে থাকেন। তাছারা ট্রাসপোর্টের মাধ্যমে পণ্য আনিলে আপনার মালা-মাল অতি সহজে নস্ট হয় না।। ধন্যবাদ।।
See also  পাইকারি ব্যবসা কি? লাভজনক ৫ টি পাইকারি ব্যবসার আইডিয়া