ব্যবসার জগতে সব থেকে লাভজনক ব্যবসা হলো খামারের ব্যবসা। আগের চেয়ে বর্তমানে বাংলাদেশে খামারের ব্যবসা অনেক। বাংলাদেশের আবহাওয়া মুরগীর খামারের জন্য উপযোগী। খামারের ব্যবসা করতে বেশি পুজি লাগে না। অল্প কিছু টাকা পুজি থাকলেই এই খামার তৈরি করতে পারবেন। আপনার বাড়ির আশে পাশে কিছু জমি থাকলে খামার তৈরি করতে পারেন। বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক শিক্ষিত মানুষ আছে জারা নাকি চাকরির আসা বাদ দিয়ে নিজের কর্মসংস্থান হিসাবে এই ব্যবসা বেছে নিয়েছেন। কারণ চাকরির থেকে অনেক টাকা ইনকাম করা যায়।

মুরগীর খামার তৈরি করতে হলে অনেক দিক বিচার বিবেচনা করে খামার তৈরি করতে হবে।

মুরগীর খামার পরিকল্পনা

মুরগীর খামার তৈরি করতে হলে অবশ্যই আপনাকে আগে পরিকল্পনা করতে হবে। খামারে কি জাতের মুরগী পালন করবেন। ঘর কতটু উচু হবে কতটু লম্বা ও চওরা হবে কেমন স্থানে খামার তৈরি করলে ভালো হবে সব দিক থেকে আগে পরিকল্পনা করে নিতে হইব।

স্থান নির্বাচন

Place selection

মুরগীর খামার তৈরির আগে ভালো একটি স্থান নির্বাচন করতে হবে। বড় রাস্তা থেকে দূরে রাখতে হবে। গনবসতি ও আবাসি এলেকা থেকে দূরে রাখতে হবে। যেখানে পর্যাপ্ত পরিমানের আলো বাতাস চলাচল করতে পারে। এই রকম জায়গা খামারের জন্য নির্বাচন করতে হবে।

খামার ঘড় তৈরি

Farm house made

মুরগীর জন্য খুলামেলা ঘড় হতে হবে। যাতে করে খুব সহজে আলোবাতাস প্রবেশ করতে পারে। মুরগির খামার উত্তর ও দক্ষিণ সাইটে তৈরি করলে মুরগীর রোখ জিবানু অনেক কম হয়ে থাকে। মুরগির খামার ঘর হতে হবে ২০ ফিট চওরা ৪০ ফিট লম্বা ১০ ফিট উচু হতে হবে।

মুরগীর বাচ্চা নির্বাচন

Selection of chicks

খামারের জন্য সবচেয়ে বড় বিষয় হলো ভালো জাতের মুরগীর বাচচা নির্বাচন করতে হবে। ভালো মানের বাচ্চা নির্বাচন না করলে খামারের ব্যবসায় লোকসান হতে পারে। আর যদি ভালো জাতের মুরগীর বাচ্চা খামারের জন্য নির্বাচন করলে লাভের আসা করতে পারবেন।

খামারের জন্য মুরগী সংগ্রহ করার স্থান

ভালো এবং উন্নত মানের কোথায় পাবেন চিন্তার কোন কারণ নাই। ঢাকা কেন্দ্রীয় মুরগীর ভালো জাত সংগ্রহ করতে পারবেন। পশু সম্পাদক অধিদপ্তর থেক খামারের জন্য ভালো জাতের মুরগী সংগ্রহ করতে পারবেন।

খামারের মুরগির জন্য খাদ্য

মুরগীর খামারের জন্য উপযোগী খাদ্য দিতে হবে। প্রতিদিন একটি মুরগির জন্য ১০০ গ্রাম সুষম খাদ্য এবং ৩০ গ্রাম দিতে হবে। তাছারা প্রতিদিন মুরগির জন্য ভুট্টা ভঙ্গা, ভুসি, খৈল, চাউলের গুড়া, পুষ্টিকর খাবার ইত্যাদি।

দৈনিক ব্রয়লার মুরগির খাদ্যের তালিকা

প্রথম সপ্তাহে ৫০ গ্রাম
দ্বিতীয় সপ্তাহে ৬৫ গ্রাম
তৃতীয় সপ্তাহে  ১০০ গ্রাম
চর্তুথ সপ্তাহে ১৪০ গ্রাম করে খাবার দিতে হবে।

দৈনিক লেয়ার মুরগির খাদ্যের তালিকা

প্রথম সপ্তাহে ১০ গ্রাম
দ্বিতীয় সপ্তাহে ১৫ গ্রাম
তৃতীয় সপ্তাহে ২৫ গ্রাম
চতুর্থ  সপ্তাহে ৪০ গ্রাম
পঞ্চম সপ্তাহে  ৬০ গ্রাম
ষষ্ঠ সপ্তাহে ৮০ গ্রাম
সপ্তম সপ্তাহে ১০০ গ্রাম
অষ্টম সপ্তাহে  ১২০ গ্রাম
পাপ্ত বয়স্ক ১৫০ গ্রাম করে দৈনিক খাবার দিতে হবে।

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা

খামারের মুরগির গুলা সুস্থ রাখার জন্য  প্রয়োজনীয় টীকা দিয়ে হবে। খামারের মুরগির কলেরা বসন্ত রোগ থেকে বাছাতে হবে। তার জন্য পশু অধিদপ্তর থেকে নিয়মিত টিকা সংগ্র করতে হবে। জাতে করে কোন রোগে আপনার খামারের মুরগির উপর আক্রমণ না করতে পারে।

খামার পরিচালনা

মুরগীর খামার পরিচালনা করতে অতিরিক্ত লোকের প্রয়োজন হবে না। আপনার পরিবারের লোকজন মিলেই খামার দেখা শুনা এবং পরিচালনা করতে পারবেন সেটা আপনার ইচ্ছা। আবার যদি চিন্তা করেন যে আমি অতিরিক্ত লোক নিয়ে খামার দেখা শুনা করবেন তাহলে তাও করতে পারেন।

খামারের আয়-ব্যয়

আপনার খামারর যদি ২০০০ হাজার ব্রয়লার মুরগী পালন জন্য প্রায়  বাচ্চা ক্রয় করতে খুরচ হবে ২০০০×২০= ৪০০০০
এক মাসে টিকা দিতে হবে পায় = ১০০০০ টাকা
খামারের খাবার প্রতিদিন খরচ হবে ৪০০০× ৩০=১২০০০ অনন্য বাবদ আরো ৫০০০০ টাকা আপনার মোট খরচ হলো ২২০০০০টাকা আপনার এই খামার দিয়ে লাভবান হতে হলে প্রতিটি মুরগী  সর্বনিম্ন ১ কেজি ৫০০ গ্রাম করে হতে হবে। তাহলে আপনার আয় হবে ১কেজি৫০০ গ্রাম× ১৬০= ২৪০ প্রতি পিছ মুরগীর দাম ২৪০ টাকা ২৪০×২০০০=৪৮০০০০ টাকা। বিক্রয় ৪৮০০০০ বাদ খরচ ২২০০০০=২৬০০০০ টাকা আপনার এক মাসের লাভ।
See also  গুলিস্তান পাইকারি মার্কেট | Gulistan Wholesale Market